বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযানের ঘোষণা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

রাজ টাইমস ডেস্ক : | প্রকাশিত: ৬ এপ্রিল ২০২৪ ১৬:২৮; আপডেট: ২৯ মে ২০২৪ ০২:৩৪

ছবি: সংগৃহীত

পার্বত্য চট্টগ্রামে বিরাজমান সংকট ও সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী হামলার পরিপ্রেক্ষিতে সরকার কঠোর অবস্থানে যাবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এছাড়াও ব্যাংকে ডাকাতি, অস্ত্র লুটের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যৌথ বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

শনিবার (৬ এপ্রিল) রুমায় সোনালী ব্যাংক পরিদর্শনের পর উপজেলা কমপ্লেক্সে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, তিনটি ব্যাংকে ডাকাতি, অস্ত্র লুটের ঘটনায় যারাই জড়িত থাকুক না কেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আজ থেকে ব্যাংকে ডাকাতি ও অস্ত্র লুটের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই এলাকার সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যৌথ বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হবে।

তিনি বলেন, ডাকাতি, অস্ত্র লুটের ঘটনায় আগাম তথ্য দেওয়ার বিষয়ে গোয়েন্দাদের ব্যর্থতা থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে, মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার দিকে বান্দরবানে সোনালী ব্যাংকের রুমা শাখায় হামলা চালিয়ে ব্যাংকের নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ ও আনসার সদস্যদের ১৪টি আগ্নেয়াস্ত্র লুটপাট করে সন্ত্রাসীরা। ভল্টের টাকা নিতে না পেরে ব্যাংকের ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় তারা।

এর পরের দিন ভরদুপুরে থানচি বাজারের সোনালী ব্যাংক ও কৃষি ব্যাংকে হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় কৃষি ব্যাংক থেকে ২ লাখ ৪২ হাজার টাকা এবং সোনালী ব্যাংক থেকে আনুমানিক ১৫ লাখ টাকা নিয়ে যায় ডাকাতরা।

সবশেষ বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) রাতে রুমা থেকে সোনালী ব্যাংকের ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনকে উদ্ধার করে র‌্যাব। কিন্তু এ ঘটনার দুই ঘণ্টার মধ্যে আবারও থানচি বাজার ও থানায় হামলা করে সন্ত্রাসীরা।

টানা এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে আজ বান্দরবান পরিদর্শনে গেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় মন্ত্রী সোনালী ব্যাংকের রুমা শাখা, মসজিদ ও উপজেলা পরিষদ পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনের সময় মন্ত্রীর সঙ্গে পুলিশ, বিজিবি, আনসার ও ডিজিএফআই প্রধানসহ ২০ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ছিলেন। এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্যরাও সেখানে যোগ দেন।

সফরের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বান্দরবান সার্কিট হাউসে সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। তিনি পার্বত্য অঞ্চলের সংকট দূর করতে দিকনির্দেশনার পাশপাশি ভবিষ্যৎ কর্মকৌশলের রূপরেখাও প্রদান দেন।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top