দলে ছারপোকা ঢোকাবেন না: হাছান মাহমুদ

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০২১ ০৮:৫৭; আপডেট: ৪ আগস্ট ২০২১ ০৬:১৭

ছবি: সংগৃহিত

দলের ভেতর ‘ছারপোকা’ না ঢোকানোর আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় মন্ত্রী এ আহ্বান জানান। চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার বুদ্ধিদীপ্ত সিদ্ধান্তের কারণেই আজ পরপর তিনবার রাষ্ট্রক্ষমতায় এসেছে আওয়ামী লীগ। দলকে যদি শক্তিশালী করতে হয়, তাহলে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। একটি শক্তিশালী ঘরের মধ্যে যদি পিলারে পোকা লাগে, সেই ঘর নড়বড়ে হয়ে যায়। তেমনি দলের মধ্যে যদি পোকা ঢুকে, তাহলে দলও দুর্বল হয়ে যায়। সবার প্রতি অনুরোধ, দলে এমন কাউকে ঢোকাবেন না, যারা ছারপোকার মতো দল কেটে ফেলে।’

‘আজকে যে সরকার সেটা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের সরকার, সরকারের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নয়। সুতরাং দল যেন সরকারের মধ্যে ঢুকে না যায়, সেটা মাথায় রাখতে হবে। দল শক্তিশালী হলে সরকারও শক্তিশালী হবে। ক্ষমতায় থাকলে দায়িত্ববান হতে হয়, আমাদের অন্য রাজনৈতিক দলের চেয়ে অনেক দায়িত্ববান হতে হবে।’

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আওয়ামী লীগের নানা প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলার তথ্য তুলে ধরে আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদ বলেন, ‘১৯৭৫ সালের পর বিএনপি, মুসলিম লীগ ও জাসদের লোকজন বলত- আওয়ামী লীগ আর কখনও ক্ষমতায় আসতে পারবে না। তাদের সেই দম্ভকে চুরমার করে ১৯৯৬ সালে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দল ক্ষমতায় আসে। আবার ২০০৮ সালে ধস নামানো বিজয়ের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। দেশের মানুষ পরপর তিনবার দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছে শেখ হাসিনাকে। পরপর তিনবার রাষ্ট্র ক্ষমতায় যাওয়ার পেছনে যার একক অবদান তিনি হচ্ছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা।’

ক্ষমতার ধারাবাহিকতার প্রাসঙ্গিকতা তুলে ধরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যদি দেশকে পরিবর্তন করতে হয়, তাহলে ক্ষমতার ধারাবাহিকতা থাকতে হয়। ষাটের দশকে স্বাধীনতা অর্জনের পর সিঙ্গাপুরে একই দল এখনও রাষ্ট্র চালাচ্ছে। মালয়েশিয়া ষাটের দশকে স্বাধীনতা অর্জনের পর দীর্ঘ পঞ্চাশ বছর একই দল রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিল, এখনও আছে। আজ আমরা সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার বদলে যাওয়ার গল্প শুনি। যদি জননেত্রী শেখ হাসিনা অব্যাহতভাবে দেশ পরিচালনার সুযোগ পান, তাহলে এখন যেমন বাংলাদেশের বদলে যাওয়ার গল্প পৃথিবী শুনছে, এই গল্পের আওয়াজ আরও বেশি শুনবে।’

‘কিন্তু অব্যাহতভাবে জনগণের রায় পেতে হলে আমাদের দায়িত্বশীল হতে হবে। কর্মীদের প্রতি নিবেদন, ক্ষমতায় থাকলে বিনয়ী হতে হয়। বিনয়ের কোনো বিকল্প নেই। সমস্ত উন্নয়ন-অর্জন ধূলিস্যাৎ হয়ে যায়, যদি ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা উদ্ধত আচরণ করেন’ বলেন হাছান মাহমুদ।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালামের সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক শেখ মো. আতাউর রহমান, সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ, এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন, স্বজন কুমার তালুকদার, মহিউদ্দিন রাশেদ।



বিষয়: রাজনীতি


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top