বগুড়ায় যমুনা নদী ভাঙনে প্রাথমিক বিদ্যালয় নিলামে, হুমকিতে শতাধিক পরিবার

রাজটাইমস ডেস্ক: | প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২৪ ০৬:৩৮; আপডেট: ২০ জুলাই ২০২৪ ০০:৩০

ছবি: সংগৃহীত

বগুড়ার সারিয়াকান্দির চালুয়াবাড়ি ইউনিয়নের শিমুলতাইড় গ্রামে যমুনা নদীর ভাঙন তীব্র হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড জিওব্যাগ ফেলে ভাঙন ঠেকাতে না পারায় শিমুলতাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নিলামে বিক্রি করা হয়েছে। আশপাশের শতাধিক পরিবার হুমকি মুখে রয়েছে।

সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান জানান, স্কুল ভবনটি নদী ভাঙন থেকে রক্ষা করা সম্ভব না হওয়ায় নিলামে এক লাখ দুই হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। শিমুলতাইড় গ্রাম রক্ষায় সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয়রা জানান, উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও বৃষ্টিতে বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার যমুনা ও বাঙালি নদীতে পানি বৃদ্ধি পায়। গত শনিবার থেকে পানি কমতে থাকায় নদী তীরে তীব্র ভাঙন দেখা দেয়। ভাঙনের মুখে পড়ে শিমুলতাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন। পানি উন্নয়ন বোর্ড বালিভর্তি জিওব্যাগ ফেলেও ভাঙন রোধ করতে পারেনি। বাধ্য হয়ে উপজেলা প্রশাসন নিলামে গত ১০ জুন এক লাখ দুই হাজার টাকায় স্কুল ভবন বিক্রি করে দেয়। ক্রেতারা ভবন ভেঙে নেওয়ার কাজ শুরু করেছেন।

এদিকে গত বছর শিমুলতাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে যমুনা নদীতে ভাঙন তীব্র হলে সেখানে পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে জিওব্যাগ ফেলা হয়। তখন ভাঙন কিছুটা হলেও রোধ হয়। এবার নদী তীরে ভাঙন দেখা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে সেখানে জিওব্যাগ ফেলতে শুরু করে। এতে ভাঙন ঠেকানো সম্ভব না হলে শিমুলতাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নদীগর্ভে বিলীন হতে শুরু করে।

এছাড়া শিমুলতাইড় গ্রামের শতাধিক বাড়ি ভাঙনের হুমকির মুখে রয়েছে। শিমুলতাইড় আশ্রয়ণ প্রকল্পও ঝুঁকিতে রয়েছে।

এলাকাবাসী বলছেন, অবিলম্বে ভাঙন রোধে কাজ শুরু না হলেও গ্রামের শতাধিক পরিবারের বাড়িঘর নদীতে বিলীন হবে। বাসিন্দাদের অন্যত্র চলে যেতে হবে।

বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির সাংবাদিকদের বলেন, বিদ্যালয় ভবনটি রক্ষায় সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হয়েছে। এলাকাবাসীদের রক্ষায় বরাদ্দ পেতে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ পেলে ভাঙন রোধে শিগগিরই কাজ শুরু করা হবে।

সারিয়াকান্দি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম কবির জানান, শিমুলতাইড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নদীতে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। তাই ভবনটি নিলামে বিক্রি করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে আবেদন করা হয়েছিল।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top