দিলারাম কে ছিলেন?

রাজ টাইমস | প্রকাশিত: ৫ অক্টোবর ২০২৩ ১২:১২; আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ০৩:২৮

ছবি: সংগৃহীত

ক’দিন ধরেই বাংলা মাতাচ্ছে “ধরো দিলারাম, ধরো দিলারাম / ধরো দিলারাম, ধরো / হাসন রাজারে বাইন্ধা রাইখো / দিলারাম তোর ঘরো”। হাসন রাজার বিখ্যাত গান। কিন্তু এই দিলারাম কে ছিরেন? উত্তর খুঁজেছেন সামারীন দেওয়ান। ‘হাসন রাজা : জীবন ও কর্ম’ বইয়ে তিনি দিরারামের পরিচয় তুলে ধরেন।  

১৮৯৪ সালে সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার রামপাশা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন দিলারাম। ১৯১০ সালের দিকে তিনি রামপাশা ছেড়ে হাসন রাজার লক্ষণশ্রী গ্রামে চলে আসেন। গৃহপরিচারিকা হিসেবে। হাসন রাজার বাড়িতে তখন গানের আসর বসত।

এই আসর দিলারামকেও প্রভাবিত করে। একসময় হাসন রাজা খেয়াল করলেন, দিলারামের গলার সুর অত্যন্ত সুমধুর। ভালো নাচতেও পারেন। হাসন রাজার সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রীর সঙ্গে থেকে থেকে দিলারাম ঘরগৃহস্থালির অনেক কাজ শিখে নিয়েছিলেন।

হাসন রাজা দিলারামকে দিয়ে ঘরের যেকোনো কাজ করাতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতেন। এসবের সূত্রেই তিনি হাসন রাজার খুব আপনজনে পরিণত হয়েছিলেন। হাসন রাজার বয়স যখন ৬০ বছর, তখন দিলারাম ২০ বছরের তরুণী। তখন থেকে তিনি সর্বক্ষণ হাসন রাজার সঙ্গে থাকতেন।

হাসন রাজার নৃত্যসঙ্গী ছিলেন উদাই জমাদার। একসময় উদাই জমাদারের সঙ্গে দিলারামের বিয়ে দিলেন। পরে দিলারাম হাসন রাজার গানের আসরের প্রধান সঙ্গী হয়েছিলেন। এসবের সূত্রেই হাসন রাজার গানের কথায়ও দিলারাম ঢুকে পড়েছেন। হাসন রাজা অনেক গানে তাঁর নামটি উচ্চারণ করেছেন।

সেখানে তিনি দিলারাম বলতে আসলে দিলে যে রাম বা মনের মানুষকে বুঝিয়েছেন। মানে, বাস্তবিক জীবনের দিলারাম আর আধ্যাত্মিক দিলারাম হাসন রাজার কাছে এক হয়ে গেছে। ১৯৬৮ সালে দিলারামের মৃত্যু হয়। মুরাদ আলী নামে এক পুত্রের জননী তিনি। তাঁর বংশধররা এখনো সুনামগঞ্জে আছে।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top