মৃত্যুর ৩১ বছর পর ‘একুশে পদক’ পেলেন গীতিকার বাবু

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ১৭:১৫; আপডেট: ২৮ জানুয়ারী ২০২৩ ১২:২৬

ছবি: সংগৃহীত

বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ দেশের ২৪ বিশিষ্ট নাগরিককে ২০২২ সালের একুশে পদক দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সংগীতে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে একুশে পদক পাচ্ছেন নজরুল ইসলাম বাবু। নন্দিত এই গীতিকার মৃত্যুর ৩১ বছর পরে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পেলেন।

খবরটি সংগীতাঙ্গনে আনন্দ বয়ে এনেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই সন্তুষ্টি প্রকাশ করে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।
‘সবকটা জানালা খুলে দাও না’, ‘একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার’, ‘দুই ভুবনের দুই বাসিন্দা’, ‘পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই’, ‘ডাকে পাখি খোল আঁখি’, ‘কাল সারারাত ছিল স্বপ্নের রাত’, ‘আমার গরুর গাড়িতে বউ সাজিয়ে’, ‘কতো যে তোমাকে বেসেছি ভালো’ এমন অসংখ্য কালজয়ী গানের স্রষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম বাবু।
১৯৪৯ সালের ১৭ জুলাই জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জের চরনগর গ্রামে ক্ষণজন্মা এই গুণী মানুষের জন্ম। তার বাবা বজলুল কাদের ছিলেন স্কুল শিক্ষক। মা রেজিয়া বেগম গৃহিণী। বাবার সংগীতের প্রতি অনুরাগ ছোটবেলা থেকেই বড় সন্তান নজরুল ইসলাম বাবুকে প্রভাবিত করে।

২১ বছরের টগবগে তরুণ নজরুল ইসলাম বাবু ১৯৬৯ সালে সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের ছাত্রনেতা হিসেবে বেশ নামডাক করেন। হঠাৎ তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে তৎকালীন সামরিক জান্তা। এর মধ্যে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। তিনি আত্মগোপন করেন। চলে যান ভারতে। সেখানে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ক্যাম্পে যোগ দেন।

দেশ স্বাধীন হলে তিনি আবার লেখাপড়া, সাহিত্য ও সংগীতচর্চা শুরু করেন। সিনেমা প্রযোজনাও করেন তিনি। ১৯৯০ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর গুণী এই গীতিকার মৃত্যুবরণ করেন।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top