চাঁপাইনবাবগঞ্জে লকডাউন প্রত্যাহার করে বিশেষ বিধিনিষেধ

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ৭ জুন ২০২১ ২২:০১; আপডেট: ২৫ জুন ২০২১ ১৫:৫৬

ফাইল ছবি

দুই সপ্তাহের সর্বাত্মক লকডাউনের শেষ দিনে লকডাউন প্রত্যাহার করে নিয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসন। লকডাউনের পরিবর্তে বিশেষ বিধিনিষেধ আরও করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ সাংবাদিকদের জানান, লকডাউন কিছুটা শিথিল হলেও থাকছে কঠোর নিয়মাবলী।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে অনলাইনে আলোচনার পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। আম চাষীদের বিষয়টি মাথায় রেখে এবং জুন মাসের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড ও স্থানীয় মার্কেট সমিতির আবেদন বিবেচনা করে লকডাউনের পরিবর্তে বিশেষ বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

আরোপিত বিধিনিষেধ সমূহ হলো- বাধ্যতামূলক স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও মাস্ক পরিধান করতে হবে। সব ধরনের দোকানপাট ও শপিংমল বাধ্যতামূলক স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। তবে ক্রেতা ও বিক্রেতাকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। মোটর সাইকেলে চালক ব্যতীত অন্য কেউ আরোহণ করতে পারবেন না। রিকশায় ১ জন এবং ব্যাটারিচালিত অটো রিকশায় ২ জন যাত্রী পরিবহন করতে পারবে।

সব ধরনের সাপ্তাহিক হাট বাজার এক সপ্তাহ বন্ধ থাকবে। তবে প্রয়োজনীয় বাজার সামগ্রীর দোকানসহ সব মৌলিক খাদ্যদ্রব্য সমূহের দোকান খোলা থাকবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় চলবে।

জনসমাবেশ হয় এমন ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান বিবাহ, জন্মদিন, পিকনিক পার্টি বন্ধ থাকবে। রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে। খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় সকাল ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খাদ্যদ্রব্য সরবরাহ করতে পারবে। তবে হোটেলে বসে খাবার খাওয়া যাবে না।

জেলার মধ্যে গণপরিবহন অর্ধেক আসন সংখ্যার রেখে চলাচল করা যাবে। আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। শিল্প-কারখানা স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চালু থাকবে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুম্মার নামাজসহ প্রতি ওয়াক্তে ২০ জন মুসল্লি অংশগ্রহণ করতে পারবে। অন্যান্য ধর্মাবলম্বীরা একই পদ্ধতিতে উপাসনা করতে পারবে। কৃষি ও নির্মাণ কাজের সঙ্গে জড়িত শ্রমিকগণ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও মাস্ক পরিধান করে কাজে যোগদান করতে পারবেন।

এদিকে সোমবার করোনা পরীক্ষার ফলাফলে আবারও ঊর্ধ্বগতি সনাক্ত হয়েছে। আরটি পিসিআর টেস্ট অনুযায়ী জেলায় করোনা সংক্রমণের হার ৬১ ভাগ। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব টেস্টের ফলাফলে ১৭৩টি নমুনার মধ্যে ১০৫ জন পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। র্যা৭পিড এন্টিজেন টেস্ট ফলাফল অনুযায়ী ৪৭২টি নমুনার মধ্যে ৮২ জন পজিটিভ শনাক্তের হার ১৭ ভাগ এবং জিন এক্সপার্ট রিপোর্ট অনুযায়ী ৪টি নমুনার মধ্যে ৩ জন পজিটিভ চিহ্নিত হয়েছেন। যার শতকরা হার ৭৫ ভাগ। এদিন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩ জন।

প্রসঙ্গত, জেলায় করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় গত ২৪ মে প্রথম দফা এবং ৩১ মে দ্বিতীয় দফা লকডাউন ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন। সোমবার সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসন মিলানায়তনে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে লকডাউনের পরিবর্তে ৮ জুন হতে ১৬ জুন এসব বিশেষ বিধিনিষেধ আরোপ করে জেলা প্রশাসন।

 


বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top