বাঘায় মাদক চেয়ে মাকে মারধর: থানায় সৌপর্দ

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি : | প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০২১ ১৬:৪১; আপডেট: ৪ আগস্ট ২০২১ ০৫:৫২

মা তার নেশাগ্রস্থ ছেলেকে সোপর্দ করলেন পুলিশের হাতে

রুবেল হোসেন, মাদকাসক্ত এক যুবক। নেশা উঠে গেলে তার চাই হোরোইন। আর এই জন্য প্রয়োজন অর্থ। আর সেই অর্থ দিতে ব্যর্থ হলে বিধবা মাকে করা হয় নির্যাতন। কিন্তু এভাবে আর কতদিন নিরুপায় হয়ে মা তার নেশাগ্রস্থ ছেলেকে সোপর্দ করলেন পুলিশের হাতে।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সকালে এই ঘটনাটি ঘটেছে বাঘা পৌর এলাকার মশিদপুর গ্রামে। স্থানীয় লোকজন জানান, মশিদপুর গ্রামের মৃত খোরশেদ আলমের ছেলে রুবেল হোসেন(২৫) এক সময় ভালো ফুটবল খেলোয়াড় ছিল। তার স্ত্রী-সহ চার বছরের একটি সন্তান রয়েছে। গত এক-দেড় বছর পূর্বে সে নেশার জগতে প্রবেশ করে। প্রথম দিকে ফেন্সিডিল সেবন করতো। এরপর আসক্ত হয় ইয়াবা’য়। তবে বর্তমানে হেরোইন ছাড়া তার একদমই চলেনা।

এলাকার লোকজন বলেন, শুধু রুবেল নয়, বাঘা সীমান্তবর্তী উপজেলা হওয়ায় এ অঞ্চলের অসংখ্য যুবক এখন নেশার জগতে অবস্থান করছে। এদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া অতীব জরুরী। তাঁরা এ বিষয়ে পুলিশের উর্ধ্বতন মহলের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

রুবেল হোসেন মা মেন্নেকা বেগম দুপুরে ছেলেকে আদালতে প্রেরণের সময় থানা চত্বরে এই প্রতিবেদককে বলেন, কোন মা কি এমনি এমনি তার ছেলেকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় ? ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে গেছি বাবা। নেশা উঠে গেলে কারো কোন কথা শুনে না। আমাকে মারপিট তো করেই, সাথে আসবাব পত্রও ভাংচুর করে। তাই নিরুপায় হয়ে আজ সকালে পুলিশকে খবর দিয়ে আমি তাকে থানায় সোপর্দ করেছি। আমি চাই, সে হাজত থেকে সংশোধন হয়ে ফিরে আসুক।

বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, রুবেলের মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার সকালে নিজ বাড়ী থেকে হেরোইন সহ তাকে আটক করা হয়। অতঃপর দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top