কেনাবেচা ও দেনা-পাওনা আদায়ে উদারতার পুরস্কার

রাজটাইমস ডেস্ক | প্রকাশিত: ১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:২১; আপডেট: ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ০৮:১৭

ছবিঃ প্রতীকি

দৈনন্দিন জীবনে মানুষের কেনাবেচা করে। লেনদেন করে। দেনা-পাওনা আদায় করে। এগুলো মানুষের জীবনের নিয়মিত কাজ। অনেকেই এসব ক্ষেত্রে চরম কঠোরতা অবলম্বন করেন। কেউ কাউকে ছাড় দিতে চান না। যাদের উদারতা দেখানোর সুযোগ নেই, সেটা ভিন্ন কথা। কিন্তু যাদের সুযোগ থাকার পরও উদারতা দেখান না তারা সুন্দর একটি পুরস্কার পাওয়ার সুযোগ নষ্ট করেন। কী সেই সুযোগ?

নবিজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, সুযোগ থাকলে কেনাবেচা ও পাওনা আদায়ে উদারতা দেখানো অনেক বড় সাফল্যের কাজ। আল্লাহ তাআলা এমন লোকদের গুনাহ মাফ করে দেন। হাদিসে পাকে এসেছে-

হজরত জাবির রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন-

غَفَرَ اللهُ لِرَجُلٍ كَانَ قَبْلَكُمْ كَانَ سَهْلًا إِذَا بَاعَ سَهْلًا إِذَا اشْتَرٰى سَهْلًا إِذَا اقْتَضٰى

‘তোমাদের আগের যুগের এক ব্যক্তিকে আল্লাহ তাআলা মাফ করে দিয়েছেন। সে বিক্রির ক্ষেত্রে ছিল উদার ও সহজ, ক্রয়ের ক্ষেত্রে ছিল উদার, (আবার পাওনা আদায়ে) তাগাদার ক্ষেত্রেও ছিল উদার।’ (তিরমিজি)

হাদিসের শিক্ষা অনুযায়ী কেনাবেচার ক্ষেত্রে যেমন উদার হওয়া জরুরি তেমনি দেনা-পাওনা পরিশোধের ক্ষেত্রে উদার হওয়ার বিকল্প নেই। তবেই মহান রবের কাছে পাওয়া যাবে ক্ষমা। তাই সুযোগ থাকলে কেনাবেচা ও দেনাপাওনার ক্ষেত্রে উদারতা দেখানোর মাধ্যমে ক্ষমা পাওয়ার সুযোগ গ্রহণ করা আবশ্যক।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হাদিসের উপর আমল করার তাওফিক দান করুন। কেনাবেচা ও দেনাপাওনা পরিশোধে উদার, সহজ ও কোমলতা প্রদর্শন করে ক্ষমা পাওয়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।



বিষয়:


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস
এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top